ঢাবি শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে ঋণ দিবে ৮০০০ টাকা

ঢাবি শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে ঋণ দিবে ৮০০০ টাকা। বর্তমান বিশ্বে মহামারী করোনার কারণে সবকিছু পিছিয়ে গেছে।এক কথায় মানুষের জীবনযাত্রার মান অনেক টায় কষ্টের হয়ে গেছে। দীর্ঘ ১৫ মাস ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ। শিক্ষার্থীদের জীবন অনেকটাই অস্বাভাবিক ভাবে চলছে বর্তমানে,কারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ পড়াশোনা বন্ধ। এছাড়াও অনেকে প্রাইভেট পড়িয়ে পরিবারকে সহোযোগিতা করতো সেটাও এই মহামারীর কারণে অসম্ভব।তারপরেও জীবনের এ লড়াইয়ে লড়তে হবে এবং সফলতা অর্জন করতে হবে বা ছিনিয়ে আনতে হবে।

বর্তমানে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ।ক্লাস চলছে অনলাইনে। কিন্তু অনেক শিক্ষার্থীর ই পরিবার চলছে না হিমসিম খাচ্ছে পরিবারের সবাই এর ভেতরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নেট কিনে ক্লাসে অংশগ্রহণ করা অসম্ভব একটা বিষয়। তথ্য অনুযায়ী আশার বাতির মতো জানা গেছে ঢাবি শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে ঋণ দিবে ৮০০০ টাকা। আবেদন করতে পারবে ১৫ জুন পর্যন্ত এটাই শেষ সময়।করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। শিক্ষা কার্যক্রম চলছে অনলাইনে। অনলাইন শিক্ষার জন্য স্মার্টফোন (মোবাইল) কিনতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে ৮ হাজার শিক্ষার্থী পাচ্ছেন বিনা সুদে =৮০০০ টাকা করে ঋণ।

এ জন্য শিক্ষার্থীদের ১৫ জুনের মধ্যে নির্ধারিত ফরম পূরণ করে আবেদন করতে হবে। এর আগে গত বছরের নভেম্বরে দেশের সরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত ৩৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪১ হাজার ৫০১ জন অসচ্ছল শিক্ষার্থীকে বিনা সুদে=৮০০০ টাকা করে ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। বিশ্ববিদ্যালয় খোলার পর অথবা অধ্যয়নকালীন চারটি কিস্তিতে বা এককালীন আসল টাকা শিক্ষার্থীরা পরিশোধ করতে পারবেন বলে তখন জানানো হয়েছিল। ওই তালিকায় সবচেয়ে বেশি ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট ৮ হাজার ৫৫৬ শিক্ষার্থী ঋণের জন্য আবেদন করেছিলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ইউজিসির নীতিমালা-২০২০-এর আলোকে করোনা মহামারির কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার লক্ষ্যে আর্থিকভাবে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের সুদবিহীন ঋণের আওতায় স্মার্টফোন কেনার জন্য ঋণ প্রদানের নিমিত্তে কয়েকটি শর্তে বিভাগ/ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে আবেদন করা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে তথ্য সরবরাহের জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। আবেদনের শেষ সময় ১৫ জুন শেষ। শর্তগুলো হলোঃ

১)ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক/স্নাতকোত্তর পর্যায়ে অধ্যয়নরত অসচ্ছল শিক্ষার্থী যাঁদের নাম ‘শিক্ষার্থীদের সফট লোন’ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত আছে, কেবল তাঁরাই আবেদন করতে পারবেন।

২)ঋণের সর্বোচ্চ সিলিং ৮ হাজার টাকা, যা সুদমুক্ত। এসব টাকা সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে প্রদান করা হবে।

৩)শিক্ষার্থীদের জরুরি ভিত্তিতে সোনালী/জনতা/অগ্রণী ব্যাংকের যেকোনো একটি শাখায় নিজ নামে ব্যাংক হিসাব খুলে নিজ নিজ বিভাগ/ইনস্টিটিউটকে জানাতে হবে।

৪)সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে স্মার্টফোন কেনার ভাউচারটি বিভাগ/ইনস্টিটিউটের মাধ্যমে সফট লোন অনুমোদন কমিটির সদস্যসচিবের কাছে জমা দিতে হবে।

৫)ঋণের অর্থ সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের সময়ে এককালীন অথবা ৪টি সমান কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে।

৬)ঋণের সম্পূর্ণ অর্থ ফেরত না দেওয়া পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীর নামে কোনো ট্রান্সক্রিপ্ট ও সাময়িক/মূল সনদ ইস্যু করা হবে না।

৭)১৫ জুনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সফট লোন তালিকায় নিবন্ধিত শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (www.du.ac.bd) ওয়েবসাইটে অন্তর্ভুক্ত Du Forms এর অন্তস্থ Student Softloan থেকে ডাউনলোড করে পূরণের পর নিজ নিজ বিভাগ/ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান/পরিচালকের নিকট প্রেরণ করতে।

ঢাবি শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে =৮০০০ টাকা ঋণ দিবে এই সিদ্ধান্তটা অনেক সুন্দর ও সহযোগিতামূলক একটি ভালো কাজ।বর্তমানে এই মহামারীর খারাপ অবস্থার কারণে পৃথিবীতে সবকিছু পিছিয়ে গেছে।সুতরাং সবকিছু এগিয়ে নেতে আমাদের সকলের সকলকে সাহায্য সহযোগিতা করা উচিত।আর এভাবে সকলে সকলকে সাহয্য করলে পিছিয়ে থাকা সবকিছু দ্রুত গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে।

সুষ্ঠ পরিকল্পনা ও সকলের সহায়তাই পারে সবকিছু কে দ্রুত গতিতে এগিয়ে নিয়ে যেতে। আরোও বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা বিষয়ক তথ্য পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

(সূত্রঃপ্রথম আলো)

1 thought on “ঢাবি শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে ঋণ দিবে ৮০০০ টাকা”

Leave a Comment